কিছুক্ষণ পরে ছাত্রী আমাকে হাসানোর জন্য প্রশ্ন করলো

এক বালতি মন খারাপ নিয়ে গেলাম,টিউশনিতে।স্টুডেন্ট আমাকে নিশ্চুপ দেখেই,আমাকে হাসাতে ব্যস্ত হয়ে পড়লো। পড়াছিলো ইংরেজি রচনা,নিউজপেপার।কিছুক্ষণ পরে ছাত্রী আমাকে হাসানোর জন্য প্রশ্ন করলো,স্যার এখানে কালারকন্ঠ না? আমি বললামঃনা।এটা কালারকন্ঠ না,এটা হলো কালের কন্ঠ। হাসি তো দুরের কথা,আমার আরো মন খারাপ বেড়ে গেল।আমি গুমড়ো মুখো হয়ে বসে রইলাম।

কিছুক্ষণ পরে, ছাত্রী আমাকে আবার হাসানোর জন্য বললোঃজানেন স্যার!আজকে পরীক্ষায় আমার পিছনের মেয়েটার প্রাইভেট স্যার না, জানলা দিয়ে এসে বলে দিচ্ছিলো।ইংরেজি পরীক্ষার প্রতিটা লাইন বাই লাইন, একদম বানান করে করে তাকে লিখাচ্ছিলো।আফরাকে বলে দেওয়ার একপর্যায় “আফরার”স্যার বললেন,তাকে ফুলস্টপ দিতে।

কিন্তু আফরা স্যার কে বলে: স্যার “ফুলস্টপ” বানান বলেন! স্যার,আমি তো শুনে হাসতে হাসতে শেষ। এদিকে,আমি হাসছি না দেখে কোণা চোখে তাকিয়ে আমার স্টুডেন্ট আবার বলতে থাকেঃআফরার স্যার তো আফরাকে বলে ফুলস্টপ দিতে,কিন্তু আফরা তো পারেই না।উল্টো স্যারের দিকে বানান বলার জন্য চেয়ে থাকে।

স্যার আপনি যদি দেখতেন আপনি হাসতে হাসতেই মারা যেতেন। জানেন স্যার,তারপর এক পর্যায়ে গরম হয়ে আফরার স্যার আফরাকে ধমক দিয়ে বললেনঃকলমটা খাতায় দাবাই দে,গুইজ্জা দে,ঢুকায় দে।। আমার ছাত্রী বলেই হাসতে থাকলো কিন্তু আমার কোনো ফিলিংস ই আসলোনা।ছাত্রী কে যে কিভাবে বুঝায় প্রতিদিন যে হাসা যাইনা!প্রতিদিন যে হাসাটা অন্যায়।

তাই আমি আমার মতই মন খারাপ নিয়ে বসেই রইলাম। কিছুক্ষণ পর,ছাত্রীর মা শরবত নিয়ে এসে আমার মন খারাপ দেখে তিনি বললেনঃ স্যার জানেন!আগের স্যার টা কে একবার শরবত দিয়েছিলাম।আমি ভুলে শরবতের ট্যাংক দিতে গিয়ে ভুলে দুধের গুড়ো কয়েক চামুচ দিয়ে শরবত বানিয়েছিলাম।কারেন্ট ছিলনা,তাই আমি কিছু বুঝিওনি।স্যারও অর্ধেক শরবত আর অর্ধেক দুধটা খেয়ে চলে গেলেন।

পরের দিন স্যার আসলে,আপনার ছাত্রী বলে দিলে,স্যার বলেনঃআমি কি করে বুঝবো? আমি তো ভেবেছিলাম,বড়লোক দের শরবত এরকমি হয়।হা হা হা।। উনার কথাশুনে,মন আমার এতোই খারাপ হলো যে,ভাবলাম উঠেই পড়ি।এদেরকে বুঝানো যাবেনা,আমার মন খারাপের কারণ।যখনি মন খারাপ নিয়ে উঠবো উঠবো চিন্তা করছিলাম।হঠাৎ করে টিউশনির মাসের খাম টা এনে দিলে,কিছুক্ষণ পরে হা হা হা, হো হো হো হি হি হি করে হেসে উঠি। কি দুধের শরবত!হো হো হো।কি ফুলস্টপ! হা হা হা,হো হো হো…ও আল্লাহ!হাসি এবার থামাই কেমতে!

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *