আমার এখানে থাকার কারণ যদি জানতে চাও তাহলে সব কিছু ঠিকঠাক করতে হবে

আমার এখানে থাকার কারণ যদি জানতে চাও তাহলে সব কিছু ঠিকঠাক করতে হবে। আমি এখানে কেন আছি সেটা তো তুমি বুঝতে পারছো তাই না? শুনতে পাও নি আমি কি বলছি? কিন্তু কিছু তো করার নেই আমি তো একটা জিনিস এর মধ্যে আছি তাই না । তুমি সারাদিন কি এমন করছ তুমি এত ক্লান্ত হয়ে গেছো? এই কথা তো আমি বলব যে যার জন্য করি চুরি সেই বলে চোর ।

আমি সন্ধ্যা থেকে চাচার সঙ্গে বসে আছি । চাচা আমাকে একটা সেকেন্ড ও একা বের হয়ে আসতে দেয় না । বারবার এটা ওটা গল্প বলতেছে । তারপর কি হল না হল আমি চাচাকে সব কিছু খুলে বললাম । অফিসে বলব কিছুক্ষণ পরে ।

আমি এতক্ষণ ওয়েট করার পরে আমি ওপরে উঠে আসলাম। আমি ভীষণ ক্লান্ত। দোকানের ছেলেগুলো টিভি দেখতে চায় । মশার কামড় খেয়ে উপরে বসে তোমার সঙ্গে কথা বলতেছি। তোমার নিজের বিছানায় শুয়ে তুমি আমাকে অন্য কথা বলতেছে ।

দোকানের কারখানায় যারা কাজ করে তারা ওখানে কাজ করতেছে ।তাই ছেলেগুলোকে আমি উপরে পাঠাইতে পারতেছি না। কারখানা যখন খালি হবে তখন ছেলেগুলো উপরে চলে যাবে। তখন আমি তোমার সঙ্গে কথাটা বলতে পারব। তাহলে তুমি বলো তুমি আরামে আছো নাকি আমি আরামে আছি?

তোমাকে কথা বলতে গেলে তো আমাকে ফ্রি সময় কথা বলতে হবে। যেন তুমি কথাগুলো বুঝতে পারো তাই না? হঠাৎ করে তো কথা বলা যায় না। এটাতো এক লাইনের কথা না। তাই আমি ভাবলাম যে কালকের মত করে কথা বলব তাহলে তুমি সব বুঝতে পারবা। এখন কি তুমি আমার কথা বুঝতে পারছ?

আমি এখানে বসে বসে মশার কামড় খেয়ে তোমার সঙ্গে কথা বলতেছি। এখানে যে কত ময়লা। আমি কি ঝামেলার মধ্যে আছি তুমি তো বুঝতে চাও না । আমি বাসা ছেড়ে এখানে পড়ে আছি কেন সেটা তুমি বুঝতে পারছো?

তখন তোমার আম্মু কি বললেন? তারপর তুমি কি বললা? তোমাকে যদি একটা বিষয় বলি তাহলে তো তুমি আকাশ থেকে পরবে । তুমি কি জানো তারা তোমাকে আমার সাথে বিয়ে দেবে না। এটাই সত্যি। তার পেছনে অনেক কারণ আছে অনেক যুক্তি আছে।

এর থেকে আর পরিষ্কার করে কি বলবো সেটাই তো ভাবতেছি। তোমার দুলাভাই আমাকে এই কথা বলেনি । তোমার পরিবারের কথায় এমনটাই বোঝা যায় । তারা যদি তাদের মেয়ে দিত তাহলে তারা এখনই রেজিস্ট্রি করে রাখতেন। তুমি কি আমার থেকে বেশি বোঝো?

এখন তোমার কি সিদ্ধান্ত তুমি আমাকে সেটা বলো। কি হলো কথা বলতেছো না কেন?এর পিছনে একটা সহজ ব্যাখ্যা হল তারা যদি দিত তাহলে তারা এখনই সব কিছু করতে চাইতো। এটা হচ্ছে তোমাকে আর আমাকে বোকা বানানোর একটা কৌশল ।

তারা তোমার সাথেও ঠিক থাকবে আবার আমার সাথে ও ঠিক থাকবে। এখন তুমি ভাবো ভাবতেই থাকো তারপর আমাকে জানাও তুমি কি করতে চাও? তোমার কি সিদ্ধান্ত তুমি কিভাবে এই বিষয়টাকে দেখতে চাও? তোমার কাছে এটার কি সমাধান আছে?

এভাবে কথা বললে তো হবেনা তাই না ? যখন তোমার ফ্যামিলি তোমাকে চাপ দিবে তখন তুমি ঠিকই তোমার ফ্যামিলির কথাই শুনবা। তুমি কি এই বিষয়ে সরাসরি তোমার দুলাভাইয়ের সঙ্গে কোন কথা বলবা? তুমি ভালো করে জানো তুমি সেটা করতে পারবে না?

আমি তোমার জন্য এই বাসায় পড়ে আছি আর তুমি উলটা আমাকে কথা বলো ? কি হিতে বিপরীত হবে? একটা মেয়ে সেটা সহজে করতে পারে না । আমি তোমাকে সেই ঘটনার দুই মাস আগে বলতেছি । তাহলে মেনে নেওয়ার প্রশ্ন আসে কিভাবে?

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *